পুরাতন কম্পিউটার কেনার আগে আমাদের যে বিষয়গুলো খেয়াল রাখা জরুরী

কম্পিউটার টিপস

নতুন কম্পিউটার তো আমরা সকলেই কিনে থাকি কিন্তু পাশাপাশি ব্যবহৃত কম্পিউটার কেনা এটা কিন্তু কোন অস্বাভাবিক কিছু না বর্তমান সময়ে।পুরাতন কম্পিউটার কেনার ফলে অপেক্ষাকৃত মূল্য কম পাওয়া যায় বলেই। পুরো বিশ্ব এখন ব্যবহৃত পুরনো কম্পিউটার এর চাহিদা ব্যাপক।

তবে পুরনো কম্পিউটার কিনতে হলে, আমাদেরকে যে সাতটি বিষয় অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে। তা না হলে আপনি পরবর্তীতে নানা ধরনের সমস্যায় পড়তে পারেন। তাই অবশ্যই এই সাতটি বিষয়ে মনোযোগ সহকারে পড়বেন তাহলে আসুন জেনে নেওয়া যাক:

আপনার বন্ধু-বান্ধব কিংবা পরিচিত কারো থেকে কিনুনঃ

চেষ্টা করবেন আপনার পরিচিত কারো থেকে কম্পিউটার কেনার জন্য অথবা চেষ্ট করবেন কোন ভালো একটি প্রতিষ্ঠান থেকে কেনার জন্য। যাতে করে পরবর্তীতে কোন সমস্যা হলে কিংবা কোন কিছু না বুঝলে আপনি তাদের দ্বারস্থ হতে পারেন। এখন আপনি যদি আমাকে প্রশ্ন করেন, যে ভাই আপনার কি মতামত? তাহলে আমি বলব: আপনি কোন একটি ভাল প্রতিষ্ঠান থেকে কিনেন পুরাতন কম্পিউটার। কেননা পরবর্তীতে কোন সমস্যা হলে আপনি যাতে তাদের দ্বারস্থ হতে পারেন সেজন্য আমি প্রতিষ্ঠানের কথা বললাম। যদি কোন ব্যক্তি থেকে কিনেন তার সুনাম কিংবা সম্মানের কথা হতো তিনি চিন্তা করতে না পারে। কিন্তু একটি প্রতিষ্ঠান সর্বদাই চেষ্টা করবে তার প্রতিষ্ঠানের সুনাম বা সম্মান সর্বদা ঠিক রাখতে। তাই তিনি চেষ্টা করবে আপনাকে ভালো মানের কম্পিউটার দিতে।

কি কাজের জন্য কম্পিউটার নিচ্ছেন সেটি নির্বাচন করুনঃ

মনে রাখতে হবে প্রতিটি কম্পিউটার এক নয় এবং এক একটি কম্পিউটার একেক কাজে ব্যবহৃত হয়। তাই কোন কাজের জন্য নিচ্ছেন সেটি আগে নির্বাচন করুন। ধরুন আপনি মাইক্রোসফট অফিসের প্রোগ্রামগুলো ব্যবহার করবেন এবং সেজন্য আপনি কম্পিউটারে নিয়েছেন। কিন্তু আপনি যদি অধিক দামে গেমিং কম্পিউটার কেনান, সে ক্ষেত্রে আপনার কোনো কাজে আসবে না। আপনার থেকে অবশ্যই আপনার প্রয়োজন অনুসারে কম্পিউটার কিনতে হবে। আর সব থেকে ভালো হয় কম্পিউটার কেনার আগে একটু গবেষণা করে নিলে।

দামের পাথক্য যাচাইঃ

পুরাতন কম্পিউটার কিনছেন মানে আপনার সামর্থ্য কম কিংবা আপনার দামের দিকে সমস্যা আছে তাই আপনি পুরাতন পিসি কিনছেন। যদি স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি কম মূল্যে বিক্রি করে তাহলে বুঝতে হবে এটি সন্দেহজনক। আর চেষ্টা করবেন যার থেকে কিনছেন সে কম্পিউটার টি কোথা থেকে কিনেছে কিংবা কোথা থেকে এনেছে।

ল্যাপটপের নিলে ব্যাটারি চেক করুনঃ

যদি ল্যাপটপ কিনে থাকেন তাহলে অবশ্যই ল্যাপটপের ব্যাকআপ কত মিনিট দিবে কিংবা একবার চর্জ দিলে কতক্ষণ পর্যন্ত চলবে এই সব বিষয় যার থেকে কিনছেন তার থেকে জেনে নিবেন। যদিও এটি গ্যারান্টি সহকারে বলা খুবই মুশকিল তারপরও এ বিষয়গুলো জেনে নেওয়া ভালো। আরেকটি ল্যাপটপের সবচাইতে মূল্যবান সম্পদ হচ্ছে ব্যাটারি। ব্যাটারি ছাড়া কল ল্যাপটপ চালিয়ে একেবারেই মজা পাওয়া যায়।

চালিয়ে দেখা উচিতঃ

মনে রাখতে হবে যার থেকে আপনি কি কিনছেন সর্বদাই চেষ্টা করবে আপনার কাছে পণ্যটি যেভাবে পারুক বিক্রি করতে। তাই সব থেকে উচিত হবে আপনি যেটি কিনছেন সেটি চালিয়ে দেখে নেওয়া। এখন প্রশ্ন হতে পারে আপনি কত মিনিট কম্পিউটারটি চালাবেন? আপনি 30 মিনিট পিসি চালালেই আপনি অনুমান করতে পারবেন কম্পিউটারটি কেমনে।

পরবর্তীতে কোন সমস্যা হলে রিফান্ডের কথা বলে রাখুনঃ

যদিও ইলেকট্রনিক ডিভাইসের কোন গ্যারান্টি থাকে না। তারপরেও যার থেকে কিনছেন তার থেকে চেষ্টা করবেন যে পরবর্তীতে কোন সমস্যা হলে তাকে টাকা রিফান্ড করতে হবে এমন কথা বলে নেবার।

আপনার পরিচিত অভিজ্ঞদের সাহায্য নিনঃ

সর্বশেষ আপনাদের কাছে যে কথাটি বলতে চাই। আপনি পিসি সম্পর্কে যতই জানো না কেন। আপনার আশেপাশে যদি আর কোন অভিজ্ঞ ব্যক্তি থাকে, তাকে সাতে নিয়ে জাবেন। তাহলে দুজনে মিলেই আপনারা ভালোভাবে কম্পিউটারটি দেখে কিনতে পারবেন

তো বন্ধুরা আশা করছি আপনারা কিভাবে পুরাতন পিসি কেনার সময় কি কি দেখে নিবেন? সবকিছু বিষয় আপনাদের সম্পূর্ণ ধারণা হয়ে গেছে? এরকম আরো নিত্যনতুন টেক রিলেটেড খবরা খবর পেতে আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *